বিচার না হওয়া পর্যন্ত ভিকারুননিসার ছাত্রীদের পরীক্ষা বর্জন

0
198

রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্রী অরিত্রির আত্মহত্যার বিচার না হওয়া পর্যন্ত সকল পরীক্ষা বর্জনের কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান শাখার ছাত্রীরা। সেই সাথে বুধবার (৫ ডিসেম্বর) সকাল থেকে তারা পুনরায় কলেজ ফটকে অবস্থান করবেন বলেও জানা গেছে।

মঙ্গলবার (৪ ডিসেম্বর) কলেজ প্রাঙ্গণে সকাল থেকে অবস্থানরত আন্দোলনকারী ছাত্রী ও তাদের অভিভাবকরা বিকেল ৪ টার দিকে এই কর্মসূচির ঘোষণা দিয়ে আজকের আন্দোলন শেষ করেন। সেই সাথে তারা কলেজের অধ্যক্ষ ও শাখাপ্রধানের পূর্ণ বরখাস্ত, গভর্নিং বডি বাতিল, প্রচলিত আইনে অরিত্রী হত্যার বিচারের দাবিও জানান।

এ সময় শিক্ষার্থীরা বলেন, শিক্ষামন্ত্রী আমাদের ৩ দিনের কথা জানিয়েছেন। এ সময়ের মধ্যে বিচার সম্পন্ন না হলে লাগাতার আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটিতে বিভিন্ন শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষা চলছে। মঙ্গলবার ছাত্রী ও অভিভাবকদের আন্দোলনের মধ্যেও পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে মঙ্গলবার রাজধানীর বেইলি রোডে অবস্থিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির সামনে জড়ো হন ক্ষুব্ধ ছাত্রী ও তাদের অভিভাবকেরা। এ সময় শিক্ষার্থীদের হাতে ‘সুইসাইড মানে কি শুধুই প্রেমে ব্যর্থতা?, ‘স্কুল কিলস স্টুডেন্টস’, ‘এই শহরে কোনো তীব্র স্লোগান মুখর হতে বেশিক্ষণ লাগে না’, ‘আমরা আর অরিত্রী চাই না’, ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’, ‘একি শুধু আত্মহত্যা?’ লেখা সংবলিত প্ল্যাকার্ড লক্ষ্য করা যায়।

উল্লেখ্য, সোমবার (৩ ডিসেম্বর) দুপুরে শান্তি নগরের নিজ বাসা থেকে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী অরিত্রি অধিকারীর (১৫) ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। অরিত্রির স্বজনরা জানান, বার্ষিক পরীক্ষায় নকল করেছে এমন অভিযোগ অরিত্রির বাবাকে ডেকে পাঠায় স্কুল কর্তৃপক্ষ। পরে অরিত্রির বাবাকে জানানো হয় তার মেয়েকে টিসি দেওয়া হবে। ওই সময় প্রতিষ্ঠানটির প্রিন্সিপাল ও ভাইস-প্রিন্সিপাল অরিত্রির সামনে তার বাবাকে অপমান করেন। এ ঘটনায় অভিমানে সে আত্মহত্যা করে। খবর পেয়ে ভিকারুননিসা নূন স্কুলের অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গেলে অরিত্রির স্বজনদের রোষানলে পড়েন তিনি।

শিক্ষার্থীর আত্মহত্যার ঘটনায় রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজে চলছে ছাত্রীদের বিক্ষোভ। ঘটনাস্থলে গিয়ে ছাত্রীদের তোপের মুখে পড়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ। মন্ত্রীর গাড়ি অবরোধ করে তারা স্লোগান দিলেন ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’!

শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদের মুখে এক পর্যায়ে মন্ত্রীও পিছু হটতে বাধ্য হন। শিক্ষার্থীদের স্লোগানের মুখে গাড়ি থেকে বের হয়ে আসেন তিনি। এ সময় প্রায় ২০ মিনিট ধরে তাদের সঙ্গে কথা বলেন এবং এ ঘটনায় বিচারের আশ্বাস দেন শিক্ষামন্ত্রী।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে এই ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রতিবেদন পেলেই দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মন্ত্রীর আশ্বাস পেয়ে পথ ছেড়ে দেয় শিক্ষার্থীরা।

এর আগে বেলা সাড়ে ১১টায় ভিকারুননিসায় আসেন শিক্ষামন্ত্রী। এ সময় তিনি অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌসকে ঘটনার জন্য ভর্ৎসনা করেন।

জানা গেছে, সকাল থেকেই ভিকারুন্নেসায় জড়ো হতে থাকে শিক্ষার্থীরা। তারা ঘটনার বিচারের দাবিতে বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দিতে থাকে।

বেলা ১১টায় অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষককে এরই মধ্যে (সোমবার রাতে) সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে এবং ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, কমিটিকে আগামী তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। প্রতিবেদন পেলেই দায়ীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, গতকাল সোমবার পরীক্ষায় খারাপ করায়, নবম শ্রেণির ‘ক’ শাখার ছাত্রী অরিত্রি অধিকারীর সামনেই তার বাবাকে ডেকে অপমান করেন এক শিক্ষক। এই ঘটনায় অভিমান করে আত্মহত্যা করে অরিত্রি। নিহতের বাবার নাম দিলীপ অধিকারী। তার বাসা রাজধানীর শান্তিনগরে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here